লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি

লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি

বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ হওয়ার কারণে বাংলাদেশে বাড়ছে কৃষি কাজের চাহিদা। কেননা জীবনের সাথে এখন উন্নত জীবন ধারা যুক্ত হয়েছে কারণ এখন মানুষের বিভিন্ন রকম শখ জাগে। তার মধ্যে অন্যতম হলো বাগান করা। 

সে বাগান হতে পারে বিভিন্ন ধরনের কারো ফুলের বাগান,কারো ফলের বাগান, কারো ঔষধি উদ্ভিদের বাগান, বা কারোর অন্যান্য বাগানের মত নানা রকম শখ হয়। কিন্তু আজকে কথা বলব লিচু বাগান নিয়ে এবং লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি নিয়ে। 

আরও পড়ুন

দেশি গরুর খামার

শিং মাছ চাষ পদ্ধতি

দেখুন সাজেক ভ্যালি কোথায় অবস্থিত

কিভাবে একটি লিচু গাছে কলম করতে হয়? এবং লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি নিয়ে এই উক্ত লেখায় আলোচনা করব।জানতে হলে আমাদের সাথে থাকুন এবং পড়ুন এই লেখা জানুন লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি। প্রথমে জানবো আমরা লিচু কি? এবং লিচু গাছ দেখতে কিরকম? এবং এর ইতিহাস।

 

লিচু এবং লিচু গাছ:


লিচু সাধারণত সুদূর চীন দেশের একটি গ্রীষ্মঋতু অঞ্চলের স্থানীয় উদ্ভিদ। এবং এই লিচু গাছ সাধারণত বিশ্বের মধ্যে চীনে অন্যতম। কেননা সারা বিশ্বের মধ্যে প্রথম যে দেশের কথা মুখে আসে তাহলো চীন। কারণ সারা বিশ্বে লিচু উৎপাদনে প্রথম উৎপাদনকারী দেশ হচ্ছে চীন।
এবং চীনের পরেই আসে ভারতের নাম। তারপর এশিয়ার অন্যান্য দেশ।  লিচু গাছ সাধারণত একটি লম্বা চিরহরিৎ গাছ। এবং লিচু গাছের ফলগুলো অর্থাৎ লিচু সাধারণত ছোট ছোট গোলাকার আকৃতির হয়ে থাকে। টক এবং সাথে মিষ্টি স্বাদ যুক্ত। এবং লিচুর  নাম হচ্ছে (litchi chinesis).

 লিচু গাছের বিস্তার:


বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ হওয়ায় বাংলাদেশে লিচুর চাষ এর বিস্তার দিনের পর দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এবং সেইসাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে লিচু গাছে কলম করা। কেননা একটা লিচু গাছ ছোট থেকে বড় হতে প্রায় অনেক সময় লাগে দীর্ঘ সময়ের ব্যাপার। যার কারণে মানুষ লিচু গাছে কলম করে অল্পদিনেই ফল আশা করে। 
যার কারণে লিচু গাছের বিস্তার বৃদ্ধি করছে কলম করার মাধ্যমে। কিন্তু আমরা বেশির ভাগই জানিনা যে এই লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি কি? এবং কিভাবে লিচু গাছে কলম করে? তো আমাদের সাথে থাকুন এবং এই পুরো লেখায় আলোচনা করব লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি।

লিচু গাছে কলম:


যারা বাগান করতে ভালোবাসে তারা বেশিরভাগই কলম করার চিন্তা নিয়ে বিবৃত। কেননা অনেকেই জানে না যে এই লিচু গাছে কলম করতে হয় কিভাবে? 
যাদের একটা গাছ আছে সেখান থেকে অনেকগুলো লিচু গাছ বানানো সম্ভব শুধুমাত্রই লিচু গাছে কলম করে। কিন্তু তার জন্য আমাদের জানতে হবে লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি।

লিচু গাছে কলম করার জন্য কি কি প্রয়োজন:


লিচু গাছে কলম করার জন্য সাধারণত খুব বেশী কিছুর প্রয়োজন হয় না। অল্প কিছু সরঞ্জাম হলেই লিচু গাছে কলম করা যায়। লিচু গাছে কলম করার জন্য যা যা প্রয়োজন তা নিচে আলোচনা করা হলো।

লিচু গাছে কলম করার জন্য সাধারণত প্রয়োজন হয়:

 
  • ধারালো ছুরি 
  • পলিথিন 
  • সুতা
  • কাঁদা ও নরম মাটির পেস্ট

লিচু গাছে কলম করার উপযুক্ত সময়:


লিচু গাছে কলম করার উপযুক্ত সময় সাধারণত বর্ষাকাল অর্থাৎ আষাঢ় শ্রাবণ মাস। আষাঢ় শ্রাবণ মাস সাধারণত এই দুই মাস বর্ষাকাল এবং এই মাসে বৃষ্টি হয় অবিরাম। 
এবং এই সময়ে কলম করলে কলমের ভিতর পানি যায় এবং শেখর গজাতে সাহায্য করে। যার কারণে বর্ষাকালেই হচ্ছে লিচু গাছে কলম করার উপযুক্ত সময়। 

ধারালো ছুরি:


ছুরিটি সাধারণত ধারালো হতে হবে এবং চকচকে হতে হবে যেন মরিচা না ধরে এদিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। কেননা ছুরিতে মরিচা থাকলে বা আবর্জনা থাকলে তাতে কলোম করার সময় সেখানে ময়লা থাকার জন্য আবর্জনা লেগে যাবে। সেখানে শিকড় জ্বালাতে সমস্যা করবে। যার কারণে ছুরিটি ধারালো হতে হবে।
 

পলিথিন :


সাধারণত ২০ সেন্টিমিটার সাইজের পলিথিন লাগবে। কেননা নির্বাচিত হয়েছে এমন ডালকে কলম করার জন্য রাখবে। সেখানে ডালের ক্ষতস্থানটি ঢেকে দেওয়ার জন্য সাধারণত ২০ সেন্টিমিটার সাইজের পলিথিন লাগে।

সুতা :


সাধারণত চিকন এবং মিডিয়াম সাইজের সুতার প্রয়োজন। কেননা পলিথিন টি ঢেকে দিয়ে তা বেঁধে দিতে হবে এবং তার জন্য দুই পাশে দুই টুকরা সুতার প্রয়োজন। সে ক্ষেত্রে পলিস্টারের সুতা না হয়ে সুতি কাপড়ের সুতা হলে ভালো হয়। 

কলম করার জন্য মাটি তৈরি:

লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতির ভেতরে মাটি তৈরি করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। কেননা মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে এবং সেখান থেকেই শিকড় গজাবে। তাই মাটি তৈরি করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। 

লিচু গাছে কলম করার জন্য মাটি তৈরিতে যা প্রয়োজন। 


  • জৈব সার 
  • এঁটেল মাটি। 
  • পচা গোবর। 
  • এবং জল। 

লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতির ভিতরে এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এবং জৈব সার মিশ্রিত এঁটেল মাটি এবং পচা গোবর কিংবা পচা পাতা একত্রে মিশিয়ে তার ভেতরে নির্দিষ্ট পরিমাণ জল দিতে হবে। 
ভালো করে কাদা বানাতে হবে এবং এমনভাবে মাটি পেস্ট করতে হবে যেন মাটি এঁটেল যুক্ত হয় এবং গাছের সাথে লাগালে তা লেগে থাকে। এরকমভাবে করতে হবে মাটি তৈরি এবং খেয়াল রাখতে হবে মাটি যেন বালিমাটি না হয় তাহলে লাগবে না ঝুর ঝুরে পড়ে যাবে।

লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি:


এবারে আসি লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি তে। তাহলে জেনে নেই লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি:

  • কলম করার জন্য সাধারণত গাছটিকে বৃদ্ধ হতে হবে এবং মাতৃগাছ হতে হবে। 

    • এবং এমন গাছ নির্বাচন করতে হবে যেন গাছটির ফলন ভালো হয়। এরকম গাছ থেকে কলম করলে ফল আশানুরূপ পাওয়া যাবে।

    • এবং একটি ডাল নির্বাচন করতে হবে সাধারণত পেন্সিলের মত একটি ডাল নির্বাচন করতে হবে। 

    • এবং সেই ডালের ৪০ থেকে ৫০ সেন্টিমিটার এর মত একটি ডালের নিচে ধারালো ছুরি দিয়ে শুধুমাত্র ডালের বাকল তুলে ফেলতে হবে ৩ থেকে ৪ সেন্টিমিটার আকারের। 

    • এখানে একটু সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে যে শুধু উপরের বাকল তুলে ফেলতে হবে খেয়াল রাখতে হবে যে নিচের কাঠে যেন আঘাত না লাগে। 

    • এবং শরীরে এমনভাবে চুষতে হবে যেন নিচের সবুজ অংশ দেখা না যায় সবুজ অংশ ভালো করে চেঁছে ফেলতে হবে। এবং ডালটাকে সাধারণত সাদা বানাতে হবে ভিতরের কাঠ বের করতে হবে।
     
    • এবং তারপর সেই কাঁটাযুক্ত স্থানে সাধারণত পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে ফেলতে হবে। 

    • এবং খেয়াল রাখতে হবে যেন বাকল ছোলার সময় যেন থেতলে না যায় বা ছাল কাটা না হয়। 

    • এবং তারপর কলম করার জন্য যে মাটি তৈরি করা হয়েছে। অর্থাৎ গোবর সার এটেল মাটি মিশ্রিত মাটি তা সাধারণত সেই বাকল তুলে ফেলা জায়গায় ভালো করে পেষ্ট করতে হবে। এবং ডালের চারপাশে মাটি দিয়ে প্রলেপ দিতে হবে।

    • এবং মাটির প্রলেপ দেওয়ার পর সাধারণত ২০ সেন্টিমিটার আকারের একটি পলিথিন দ্বারা সেই মাটি কে বেঁধে দিতে হবে। অর্থাৎ মাটি ঢেকে দিতে হবে পলিথিন দিয়ে। 

    • পলিথিন দিয়ে ঢেকে দেওয়ার পর পলিথিনের উপরে এবং নিচে সুতা দিয়ে বেঁধে দিতে হবে। বেধে দেওয়ার সময় খেয়াল করতে হবে যে ডালে লিচু গাছের কলম করা হয়েছে। নিচের অংশ বাধার সময় একটু টাইট করে শক্ত করে বাঁধন দিতে হবে। এবং উপরের অংশে একটু হালকা টাইট অর্থাৎ একটু ঢিলেঢালা রাখলে ভালো হয় একদম ঢিলেঢালা নয় হালকা শক্ত করে বাধতে হবে। যেন পানি ভিতরে ঢুকতে পারে এরকম ভাবে। 

    ব্যাস এরপর কাজ শেষ হয়ে গেল লিচু গাছের কলম করা।

    শিকড় বের হওয়ার সময়:


    লিচু গাছে কলম করার পর সেখান থেকে শিকড় বের হতে সাধারণত আড়াই মাস থেকে তিন মাস সময় লাগে। এবং কলম করা শেষ হওয়ার পর খেয়াল রাখতে হবে যে বৃষ্টি হচ্ছে কিনা। যদি নিয়মিত বৃষ্টি হয় তাহলে কলমের ডালে পানি ঢালতে হবে না। 
    এবং যদি বৃষ্টি না হয় তাহলে নিয়মিত সকাল-বিকাল ভিতরে পানি ঢালতে হবে। এবং দেখতে হবে যে মাটি যেন সব সময় ভেজা থাকে। তাহলে শেকড় বের হতে সহজ হবে। এবং আড়াই মাস থেকে তিন মাস পর অর্থাৎ শিকড় গজানোর পর ভিতরে শেখর দেখতে হবে যে সাদা সাদা শেকড় বেড়িয়েছে।
    এবং তারপর শেকড়ের কালার খয়েরি হবে। এবং তখনই লিচু গাছের কলমের ডাল কাটার উপযুক্ত সময়। 

    লিচু গাছে কলমকৃত ডাল কাটার নিয়ম:


    এখানেও ঠিক ধারালো ছুরি দিয়ে ডালটি কাটতে হবে। প্রথমে পলিথিন দিয়ে ঢেকে দেয়া আবরণটি তুলে ফেলতে হবে। অর্থাৎ সুতোর গিট খুলে তারপরে পলিথিন ছাড়িয়ে ফেলতে হবে। 
    সরিয়ে ফেলার পর দেখা যাবে যে মাটি ভেদ করে শিকড় গজিয়েছে। এমন ভাবে কাটতে হবে যেন মাটি ছেড়ে না যায় এবং শেকড় ভেঙ্গে না যায় অর্থাৎ নিচের অংশ একটু বাড়তি রেখে কেটে ফেলতে হবে। 

    কলমকৃত লিচু গাছ মাটিতে রোপন:


    এবং কলমকৃত ডালটি কেটে ফেলার পর মাটিতে রোপণ করতে হবে। এবং এমন জায়গায় রোপণ করতে হবে যেন সেখানে রোদ ঠিকমতো পায় বা সূর্যের আলো ঠিকমত সেখানে পৌঁছায়। 
    এবং মাটি যেন উর্বর হয় সেদিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। এবং ডালটি রোপন করার পর কয়েকদিন পানি ঢাললে গাছটি মাটির সাথে লেগে যাবে। তারপর কাজ শেষ।
     
    এই হল লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি। যা আমরা অনেকেই জানি না এবং জানলেও এর সঠিক নিয়ম জানিনা অর্থাৎ লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি নিয়ে অনেকেই সমস্যায় ভোগে। যে কিভাবে লিচু গাছে কলম করবো বা লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি গুলো কি? 
    এরকম হাজারো সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এবং এই উক্ত লেখা পাঠের পর আশাকরি কারো মনে আর কোনো রকম প্রশ্ন থাকবে না লিচু গাছে কলম করার পদ্ধতি নিয়ে। 

    সবাইকে ধন্যবাদ এবং আমার লেখা যদি ভালো লাগে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

    একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

    0 মন্তব্যসমূহ